গবেষণা রিপোর্ট :

২০৩০ সালের মধ্যে সারাবিশ্বে ইনসুলিনের অভাব দেখা দেবে

২০৩০ সালের মধ্যে সারাবিশ্বে ইনসুলিনের অভাব দেখা দেবে। ডায়াবেটিস আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। এজন্য চাহিদা বাড়ছে ইনসুলিনের। বাড়তি এই চাহিদার কারণে ইনসুলিনের অভাব দেখা দেবে বলে এক গবেষণায় পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে।গবেষণা প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০৩০ সালের মধ্যে ৭ কোটি ৯০ লাখ টাইপ-২ ডায়াবেটিস আক্রান্ত প্রাপ্তবয়স্কের ইনসুলিন প্রয়োজন হবে।

এর মধ্যে মাত্র অর্ধেক মানুষ পর্যাপ্ত ইনসুলিন পাবেন।ইনসুলিন সংক্রান্ত এ গবেষণাটি ল্যানসেট ডায়াবেটিস অ্যান্ড এন্ডোক্রিনোলজি নামক জার্নালে বুধবার প্রকাশিত হয়।এই গবেষণার নেতৃত্বদানকারী যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক সঞ্জয় বসু বলেন, যে পরিমাণ ইনসুলিন প্রয়োজন সেই পরিমাণ যোগান নেই। ভবিষ্যতে এই সমস্যাটি আরও বাড়বে।

বিশেষ করে এশিয়া ও আফ্রিকা অঞ্চলে এমন সমস্যা মোকাবেলায় আরও ভালো পদক্ষেপ নেয়া উচিৎ।তিনি আরও বলেন, জাতিসংঘ বিশ্বজুড়ে ডায়াবেটিস রোগীদের ওষুধ নিশ্চিত করেছে। তারপরও বিশ্বের অনেক মানুষ ঠিকভাবে ইনসুলিন পাচ্ছেন না।টাইপ-১ ডায়াবেটিসের সব রোগীর ইনসুলিন প্রয়োজন হয়। অন্যদিকে টাইপ-২ ডায়াবেটিস আক্রান্ত কিছু রোগীর এটা প্রয়োজন হয়।

মূলত মানুষের বিভিন্ন অভ্যাসের কারণেই ডায়াবেটিস হয়ে থাকে। ওজন বেড়ে যাওয়া ও সুষম খাবার না খাওয়া থেকে এই রোগ হতে পারে।বিশ্বের ২২১টি দেশ নিয়ে এই গবেষণা চালানো হয়। বর্তমানে ৪০ কোটি ৬০ লাখ মানুষ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। ২০৩০ সালে এই সংখ্যাটি ৫১ কোটি ১০ লাখে পৌঁছাবে।