fbpx

শুভ জন্মদিন শ্রদ্ধেয় দিলারা জামান

হ্যাঁ। এটা করতে পারাটা আমার একটা স্বপ্নের মতো।

> অভিনয় কি তাহলে আমৃত্যু করে যাবেন?

আমার তো তেমনই চিন্তা। অভিনয় করতে করতে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করতে চাই। যে যাই বলুক না কেন, যতই ব্যাকডেটেড বলুক না কেন, আমি আমার অভ্যাস থেকে বের হতে পারব না। যার জন্য আমেরিকা ও কানাডায় থাকা মেয়েরা আমাকে সব সুযোগ-সুবিধা দিয়ে রাখার পরও নিজের দেশ, মাটি, অভিনয়ের টানে ফিরে এসেছি।

৫৬ বছরের অভিনয়জীবনে স্বপ্নের চরিত্রের দেখা পেয়েছেন?

স্বপ্নের চরিত্র এখনো করতেই পারিনি মনে হয়। এখনো স্বপ্ন দেখি, এমন একটা চরিত্রে অভিনয় যেন করতে পারি, যা সব মানুষের মনে দাগ কেটে যায়। পরিচালকেরাও হয়তো আমাকে নিয়ে ভাবেননি।

সুনির্দিষ্ট কোনো চরিত্রের প্রতি আগ্রহ আছে?

আমি মনে করলে কি আর হবে? মনে তো হয় অনেক কিছু, কিন্তু বলেও লাভ কী?

আজকের অভিনয়শিল্পীদের কেমন দেখছেন?

ওরা এসব নিয়ে ভাবে না। ওদের দোষ দিয়েও লাভ নেই। ওরা এখন অন্য জগতের সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিয়েছে। আধুনিক ও গতিময় জীবনের সঙ্গে অভ্যস্ত হয়ে গেছে। যার জন্য স্ক্রিপ্ট পড়ে, চরিত্র নিজের মধ্যে ধারণ করে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর সময়ই যেন নেই। মহড়া তো পরের কথা। এখন তো অনেকে দেখি গল্প বলছে একরকম, গল্প না পড়ায় চরিত্রের সঙ্গে মানানসই নয় এমন কস্টিউম নিয়েই শুটিংয়ে হাজির হয়!

‘গল্পগুলো আমাদের’ নাটকে সৈয়দ হাসান ইমাম ও দিলারা জামান
 
‘গল্পগুলো আমাদের’ নাটকে সৈয়দ হাসান ইমাম ও দিলারা জামান

এতে করে তো মানুষ অভিনয়শিল্পীদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে।

নেবে কি! নিয়েছে তো। আমাদের নাটক এখন আগের মতো কেউ দেখতে চায় না। অবাস্তব ও অসামঞ্জস্যপূর্ণ গল্প, জীবন ঘনিষ্ঠ না—তাই দর্শকেরও ভালো লাগে না। সিরিয়াস হতে হবে বললেও তো হবে না।

কী করা উচিত?

জানি না, এসবের জন্য সবাই দায়ী। সবারই দায়বদ্ধতা আছে। টেলিভিশন কর্তৃপক্ষেরও দায় আছে। যিনি অভিনয় করেন তিনিও যেমন বলবেন, যিনি ডিরেকশন দেন তিনি তো আরও আগে বলবেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।