মেসি -নেইমার!

নিজেই হয়ে উঠুন মেসি -নেইমার!

লোকে বলে, “ভাত খাইতো  ভাত নাই, ছালন ছালন করে!

মো. মাকসুদ উল্যাহ্ঃ-মেসি নেইমারের কোটি কোটি টাকা আছে! আর আপনি বেকার! আপনার কোনো দক্ষতা যোগ্যতা নাই!

আপনি না পরেন কোনো কারীগরী কাজ, না পারেন কম্পিউটার ব্যবহার করে একটি জ্যামিতি বই লেখার কাজ, না পারেন ইংরেজী ভাষা আর না পারেন অংক! যে ব্যক্তি অংক জানে,  সে মানুষের দ্বারা সম্ভব  বাকি সব কাজ করতে পারে।  জাতি আপনার দিকে তাকিয়ে আছে, আর আপনি মেসি নেইমার নিয়ে সময় নষ্ট করতেছেন?

মেসি নেইমার বছরের পর বছর ধরে     হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, তারকা হয়েছে। আর আপনি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য বড় ভাইয়ের পানে চেয়ে অপেক্ষা করতেছেন! বড় ভাই আপনাকে চাকরি দেবে!  আপনি তারকা হতে চাচ্ছেন ফেসবুকে ডাক্তারের বিরুদ্ধে অপবাদ আর গালিগালাজ করার মাধ্যমে! আপনি চাচ্ছেন প্রেশার মাপা শিখে ডাক্তার এবং পরবর্তিতে ডাক্তারদের বস হতে! এভাবেতো আপনি নিজ   জাতিকে বরং ধ্বংসই করতে পারবেন!

এক হাজার জনে তিন জনের জন্ডিস হলে,  শতকরা কত জনের জন্ডিস এটা আপনি হিসাব করতে পারেন না! আশিটি চার পয়সায় কত টাকা হয়, এটা আপনি অংকের ভাষায় লিখে গুন অংক করে  হিসাব করতে পারেন না! ১.১১ আর ১.৯ এই দুটোর  মধ্যে কোনটির মান বেশি , তা আপনি বলতে পারেন না! এগুলো না জানলে একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক আপনাকে তার প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেবে কেন?   অথচ মেসি নেইমার নিয়ে লাফালাফি, গালাগালি এমনকি মারামারি করতেছেন! যে সময় আর টাকা  ব্যয় করে আপনি ব্রাজিল আর্জেনটিনার পতাকা বানাচ্ছেন, সে সময়ে আপনি পুনরায় তৃতীয় চতুর্থ শ্রেনীর অংক,  ইংরেজী  ও বিজ্ঞান বই নিয়ে বসে পড়ুন! এই বয়সে তৃতীয় চতুর্থ শ্রেনীর বই পড়তে লজ্জার কিছু নেই! এতে বরং আপনার সম্মান বাড়বে। যোগ্যতা দক্ষতা বাড়বে!   একেবারে না শেখার চাইতে দেরিতে শেখা ভালো।  বরং এ বয়সে আপনি প্রাথমিকের বই থেকে অনুশীলন শুরু করলে খুব সহজে কম সময়ে  বুঝতে পারবেন।  তারপর পঞ্চম- ষষ্ঠ। এভাবে উপরের দিকে আগালে আপনি সফল হতে বাধ্য!  মেসি নেইমারের মতো আপনারও   চোখ , কান,  মগজ , হাত-পা আছে। তাহলে আপনি পারবেন না কেন?
অলসতা ঝেড়ে ফেলুন! কঠিন সিদ্ধান্ত নিন! আপনি সফল হবেনই!

আরবী ভাষা শিখুন। আরবী ভাষা না জানার কারনে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বাংলাদেশীরা চাকরিতে সুবিধা করতে পারছে না! অথচ ভারতের লোকেরা ভাঙা ভাঙা আরবী বলতে পারে বিধায় মধ্যপ্রাচ্যে  তারা চাকরির বাজার প্রায় পুরোটা  দখল করে রেখেছে!

প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সময়ের একটা বড় অংশ  অহেতুক ব্যয় হয়। এই সময়গুলো কাজে লাগিয়ে আপনি দৈনন্দিন জীবনে কম্পিউটারের ব্যবহারগুলো শিখে ফেলুন।

চাকরির জন্য কারো দুয়ারে অনুনয় বিনয় করতে হবে না আপনাকে। চাকরিই বরং আপনাকে খুজবে!

আপনার স্বজাতিকে কচুকাটা করা হচ্ছে বার্মায়, কাষ্মীরে, চীনে, গাজা উপত্যকায়, সিরিয়ায়, আফগানিস্তানে!

মেসি নেইমারের স্বজাতিকে কি কেউ কোথাও এমন করছে?

দুদিন আগেই গাজায় গণহত্যা হলো! বার্মায় কেটে টুকরো টুকরো করা হলো, পুড়িয়ে দেয়া হলো!

এইতো কিছুদিন আগে সিরিয়ায় পাইকারি হত্যা হলো! তাদেরকে রক্ষার জন্য কিছু করুন! আর সেটা করতে হলে প্রথমে গড়তে হবে নিজেকে! নিজেকে গড়তে হলে মেসি নেইমারকে নিয়ে সময় নষ্ট করলে হবে না। আপনি কোনো তারকার থেকে অটোগ্রাফ নেবেন কেন? চেষ্টা পরিশ্রমের মাধ্যমে আপনিই হয়ে উঠুন তারকা!

তাই আবেগ পরিহার করুন! নিজের অবস্থা এবং অবস্থানের  দিকে তাকান। নিজের চরকায় তেল দিন! সময় চলে যাচ্ছে!

রোজার সময় সুইডেনের মুসলিমরা ২২ ঘন্টা রোজা রাখে।
আপনাকে জানতে হবে কেমন করে সেখানে ২২ ঘন্টা দিন থাকে! বাংলাদেশে কেন কখনোই ২২ ঘন্টায় দিন হয় না।

গাজায় হামাসের অবস্থানকে লক্ষ্য করে রকেট ছোড়া হয়। আপনাকে জানতে হবে, কেমন করে এত দূরে থেকে একটা নির্দিষ্ট  জায়গা বরাবর ঠিকমতো রকেট নিক্ষেপ করা যায়! এটা বুঝতে হলে আপনাকে পদার্থবিজ্ঞান ভালো করে বুঝতে হবে, জানতে হবে অংক !

আমেরিকায় যেটা উপরের দিক, বাংলাদেশে সেটাই নিচের দিক।  এটা কেমন করে সম্ভব, তাও জানতে হবে আপনাকে!

আমাদের শৈশবে রোজা ছিল শীতকালে। এখন রোজা চলতেছে গ্রীষ্মকালে। অথচ আরবীতেও বারো মাস,  আবার ইংরেজীতেও বারো মাস! তাহলে কেন এমন হয়? জানতে হবে!

২০১৬ সালে ফেব্রুয়ারী মাস ২৯ দিনে ছিল। কিন্তু ২০১৮ সালে সেটা ২৮ দিনে! আবার ২০২০ সালে হবে ২৯ দিনে! এমন ব্যবস্থা করার কারন কী? এমন না করে সব সময় ফেব্রুয়ারী মাস ২৮ দিনে বা সব সময় ২৯ দিনে হলে কী অসুবিধা হবে?

একটি নলকূপের নলের  দৈর্ঘ কত? এটার দৈর্ঘ ছয়  হাজার কিলোমিটার হওয়া সম্ভব কি? ছয়  হাজার কিলোমিটার দৈর্ঘের একটি লোহার নল ভূপৃষ্ঠ থেকে ভূগর্ভের দিকে প্রবেশ করাতে থাকলে কী  ঘটবে?

পৃথিবী যদি কমলালেবুর মতো হয়, তাহলে কমলার খোসা কী নির্দেশ করে? কমলালেবুর বীজ যেখানে থাকে, সেখানে পৃথিবীর ক্ষেত্রে কী থাকে?

চাঁদকে কখনো ধনুকের মতো, আবার কখনো থালার মতো দেখায় কেন? জানতে হবে আপনাকে!

সূর্য কি দিনে বড় হচ্ছে? না ছোট হচ্ছে? জানুন। কিভাবে হচ্ছে তাও জানুন।

বঙ্গোপসাগরের তলদেশ থেকে তেল গ্যাস উত্তোলনের জন্য ভারতীয় কোম্পানীর সাথে চুক্তি করতে হয় কেন? আপনিই হয়ে উঠুন সেই দক্ষ যোগ্য প্রকৌশলী, খনি বিজ্ঞানী, সমুদ্র বিজ্ঞানী।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরবর্তী স্যাটেলাইটগুলো  যেন নিজ দেশ থেকেই উৎক্ষেপন করা যায়। আপনিই হয়ে উঠুন সেই মহাকাশ বিজ্ঞানী।

মেসি নেইমারকে নিয়ে গড্ডললিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে দেয়াতে কোনো কৃতিত্ব নেই। বরং নিজের জীবনের লক্ষ্য স্থির করুন। তারপর বুদ্ধিমত্তার সাথে  চেষ্টা পরিশ্রমের মাধ্যমে এগিয়ে যান সামনের দিকে।

লেখকঃ চিকিৎসক, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল,  ঢাকা।

https://currentbdnews24.com

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

%d bloggers like this: